নায়িকা সংকটে ঢাকাই চলচ্চিত্র

bd actress

ঢাকাই চলচ্চিত্রে একের পর এক আসছেন নতুন নায়িকা। কেউই নিজের জায়গা তৈরি করতে পারছেন না। হাতে গোনা দু-একজন নায়িকার উপরই নির্ভর করছে সিনেমা ইন্ডাস্ট্রি। প্রতিষ্ঠিত নায়িকাদের বিয়ে এবং হঠাৎ উধাও হয়ে যাওয়ায় নতুনভাবে দেখা দিয়েছে ঢাকাই ছবিতে নায়িকা সংকট।

সিনেমায় এখন পরী মনির উপর ভরসা করছেন নবীন-প্রবীণ অনেক নির্মাতা। জাজের সিনেমায় যেমন পরী অভিনয় করছেন তেমনি গিয়াস উদ্দীন সেলিমের চলচ্চিত্রেও দেখা যাচ্ছে পরীকে।

এদিকে মাহি, অপু বিশ্বাস, আঁচলের উপর নির্মাতারা আস্থা রাখলেও তারা ব্যক্তিজীবনের নানা ঘটনায় বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছেন সিনেমা থেকে। সুপারস্টার শাকিব খানের সঙ্গে জুটি গড়ে ঢাকাই ছবিতে আলোচিত হয়েছেন অপু বিশ্বাস। অর্ধশত সিনেমায় অভিনয় করেছেন তিনি। বেশিরভাগ সিনেমায় অপু অভিনয় করেছেন শাকিব খানের নায়িকা হিসেবে।সম্প্রতি উধাও হয়ে গেছেন এই নায়িকা। খবর রটেছে সবকিছু বিক্রি করে দিয়ে ভারতে চলে যাচ্ছেন অপু। নিজের পার্লার ব্যবসাও গুটিয়ে নিয়েছেন। বিপাকে পড়েছেন অপুর সিনেমার নির্মাতারা। এই বিষয়ে একাধিক সংবাদ মাধ্যমে খবর প্রকাশিত হওয়ার পরও খোঁজ মিলছে না অপুর।

‘ভালোবাসার রঙ’ সিনেমার মাধ্যমে ক্যারিয়ার শুরু করেন মাহিয়া মাহি। অল্পদিনেই নিজেকে নাম্বার ওয়ান নায়িকা হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করেন। জাজ মাল্টিমিডিয়ার সঙ্গে মনোমালিন্য হওয়ার পরও মাহির জনপ্রিয়তায় কোনো ভাটা পড়েনি। বরং অন্য নির্মাতাদের কাছেও আস্থা তৈরি করেছিলেন তিনি।

সম্প্রতি হুট করেই বিয়ে করেন মাহি। বিয়ের পর সাবেক বন্ধুর সঙ্গে মামলায় জড়িয়েছেন এই নায়িকা। ফলে খুব দ্রুতই সিনেমায় মন দিতে পারবেন না বলেই মনে করছেন অনেকে। যদিও মাহি বিয়ের পরই বলেছিলেন, সিনেমাতে অভিনয় করবেন তিনি। সিনেমায় অভিনয় নিয়ে স্বামীর পরিবার থেকে কোনো আপত্তি নেই।কিন্তু বাল্য বন্ধু শাওনের সঙ্গে মামলায় জড়ানোর পর মাহি যেন কিছুটা গুটিয়ে নিয়েছেন। শোনা যাচ্ছে, স্বামীকে নিয়ে দুই মাসের জন্য যুক্তরাষ্ট্রে যাবেন মাহি। সেখানেই হানিমুন এবং কিছুটা সময় নিরিবিলিতে কাটাতে চান। ফলে মাহির উপর আস্থা রাখতে পারছেন না নির্মাতারা।

নায়িকা আঁচলের উপর বেশ কয়েকজন নির্মাতা আস্থা রেখেছিলেন। কিন্তু সিনেমায় সাফল্য দেখাতে পারেননি তিনি। তবে অনেকেই মনে করেছিলেন সম্ভাবনা ছিল আঁচলের। কিন্তু ব্যক্তিজীবনের নানা ঘটনায় আঁচলকেও দেখা যাচ্ছে না চলচ্চিত্রপাড়ায়। তবে শোনা যাচ্ছে, আবারও সিনেমায় অভিনয় করবেন আঁচল।

চিত্রনায়িকা পপি অনেকদিন ধরেই পর্দায় অনুপস্থিত। তবুও মাঝে মাঝে ফাঁকা আওয়াজ দিয়ে জানান দিয়েছেন ফিরবেন চলচ্চিত্রে। গত কয়েক সপ্তাহ ধরে পপির ফোন নাম্বারটিও বন্ধ রয়েছে।অভিনেত্রী জয়া আহসান তো এখন কলকাতার সিনেমাতেই বেশি ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন। বছরের বেশিরভাগ সময় থাকছেন কলকাতায়। নুরুল আলম আতিক পরিচালিত ‘পেয়ারার সুবাস’ চলচ্চিত্রের শুটিংয়ে জয়া এখন সিরাজগঞ্জে রয়েছেন। এরপরই আবারও কলকাতায় চলে যাবেন। সেখানে ‘আমি জয় চ্যাটার্জি’ সিনেমার শুটিং করবেন। এছাড়া ঢাকাই চলচ্চিত্রের নির্দিষ্ট নির্মাতা ছাড়া অন্য কোনো নির্মাতার সঙ্গে কাজ করতেও দেখা যায়নি জয়াকে।

সিনেমায় ক্যারিয়ারে শুরু থেকেই আলোচনায় রয়েছেন নায়িকা পরী মনি। নতুন-পুরাতন সব নির্মাতার ভরসা যেন হয়ে উঠেছেন এই নায়িকা। গিয়াস উদ্দীন সেলিমের ছবিতে যেমন অভিনয় করছেন, আবার জাজ মাল্টিমিডিয়ার ছবিতেও অভিনয় করছেন তিনি। ফলে নায়িকা সংকটের এই সময়ে অনেকের কাছেই নির্ভরতার প্রতীক হয়ে উঠেছেন পরী মনি। এই গ্ল্যামার কন্যা এখন ব্যস্ত রয়েছেন জাজের নতুন সিনেমা ‘রক্ত’র শুটিং নিয়ে। ভারতে সিনেমাটির দৃশ্যধারণ চলছে।মাহির সঙ্গে জাজের মনোমালিন্য তৈরি হওয়ার পর ঘোষণা দিয়ে দুই নায়িকার আগমনি বার্তা জানান দেওয়া হয়। নুসরাত ফারিয়া ও জোলি জাজের নায়িকা হিসেবেই সিনেমা ইন্ডাস্ট্রিতে পথ চলা শুরু করেন। এই দুই নায়িকার সিনেমা পর্দায় মুক্তি পেলেও এখনো নিজেদের তেমন মেলে ধরতে পারেননি। তবে জোলির চাইতে কিছুটা এগিয়ে রয়েছেন নুসরাত ফারিয়া। জাজের বাইরে কোনো সিনেমায় অভিনয় করছেন না এই নায়িকা। ফলে সিনেমা ইন্ডাস্ট্রির নায়িকা সংকট দূর করতে ফারিয়া কোনো ভূমিকা রাখতে পারছেন না।

এদিকে আইরিন, মিষ্টি জান্নাত, সিনেমা পাড়ায় অভিষেকের পর সম্ভাবনার আলো জ্বালালেও ব্যবসায়িকভাবে সফল হতে পারেননি। এদিকে টিভি অভিনেত্রীদের মধ্যে বেশ কয়েকজনকেও দেখা যাচ্ছে বাণিজ্যিক সিনেমায়। তিশা, মিমকে নিয়ে স্বপ্ন দেখছেন বাণিজ্যিক সিনেমার নির্মাতারা। এর আগের অভিজ্ঞতায় বলে, টিভি অভিনেত্রী দিয়ে বাণিজ্যিক সিনেমা সফল হয় না। তবুও তিশা, মিমের উপর আস্থা রয়েছে অনেক নির্মাতার।সব মিলিয়ে নায়িকা সংকটে পড়েছে ঢাকাই ছবির নির্মাতারা। একের পর এক নিয়ে আসছেন নতুন নায়িকা। এদের বেশির ভাগেরই নাচ, গান কিংবা অভিনয়ে দক্ষ নয়। ফলে নবাগতদের নিয়ে খুব একটা সফল হতে পারছেন না নির্মাতারা।